যে কারণে নিষিদ্ধ হলেন জনপ্রিয় নাটক অভিনেতা অ্যালেন শুভ্র..

এ প্রজন্মের অভিনেতা অ্যালেন শুভ্র। তার বিরুদ্ধে নাট্যপরিচালক নিয়াজ মাহবুবকে প্রহার করার অভিযোগ উঠেছে। সে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তিন মাসের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন তিনি।

গেল ৪ এপ্রিল টেলিভিশন নাটকের তিন সংগঠন- ডিরেক্টরস গিল্ড, অভিনয়শিল্পী সংঘ ও টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ অ্যালেন শুভ্রর উপর এ নিষেধাজ্ঞা জারি করে। ১০ মে থেকে পরবর্তী তিন মাস এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে। এই তিন মাস পূর্ণ হবার আগে তার সঙ্গে কোনো নির্মাতা বা প্রতিষ্ঠান কাজ করলে তাকেও শাস্তির মুখে আনা হবে। একটি জনপ্রিয় অনলাইন নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিরেক্টর গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক এসএহক অলিক।

শনিবার বিকেলে এসএ হক অলিক বলেন, ‘একজন নির্মাতার সঙ্গে একজন অভিনেতার ভুলবুঝাবুঝি হওয়া স্বাভাবিক। তাই বলে গায়ে হাত তোলার মতো কাজ হতে পারে না। আমরা তিন সংগঠন গত ৪ এপ্রিল বসেছিলাম আলোচনায়। সেখানে অ্যালেন শুভ্রও উপস্থিত ছিল। সে নিজেও তার দোষ স্বীকার করেছে। তার এই শাস্তি দেখে যেনো অন্যরাও শিক্ষা নেয় সেজন্যই শাস্তি দেয়া হলো। আমি শুনেছি অ্যালেন অনেক ভালো অভিনেতা। আশা করবো সে নিজেকে শুধরে নেবে।’

অভিযোগকারী পরিচালক নিয়াজ মাহবুব বলেন, “এক বছর আগে আমার নাটক ‘গুরাগুরি’র (বরিশালের আঞ্চলিক শব্দ) শুটিংয়ে বরিশালে গিয়েছিল অ্যালেন শুভ্র। সেখানে তিন দিন কাজ করার কথা থাকলেও সে দুদিনে কাজ শেষ করতে বলে। আমি রাজি না হলে সে ওই অবস্থায় ঢাকায় চলে আসে। এর ১০-১৫ দিন পর অনেক কথাবার্তার পর সে কাজটি করে দেয়। কিন্তু নতুন করে পারিশ্রমিক দাবি করে। আমি তাকে বলি, বরিশালে শুটিংটা না শেষ করতে পারায় অনেক লস হয়ে গেছে। কারণ ওখানকার সব শিল্পীকে ঢাকায় আনতে হয়েছে। তারপরও যদি সম্ভব হয় তাহলে আমি তোমাকে টাকা দিবো।মাঝে এক বার আমাকে ফোন করে সে গালিগালাজ করে। আমি তাকে মনে মনে খুঁজছিলাম। মাস দেড়েক আগে তার সাথে আমার মগবাজার দেখা হয়। সে আমাকে ইট দিয়ে মারধর করে। তখন সে মাতাল ছিলো।

নিয়াজ জানান, এ ঘটনার পর তিনি নাটকের সংগঠনগুলোতে লিখিত অভিযোগ দেন। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে ৪ এপ্রিল তাদের দুজনকে ডাকে সংগঠনগুলো। এক সালিশি সভা বসে ওইদিন। সেখানে উপস্থিত ছিলেন অভিনয়শিল্পী সংঘের আহসান হাবিব নাসিম ও লুৎফর রহমান জর্জ, ডিরেক্টরস গিল্ডের এস এ হক অলিক, সৈয়দ শাকিল ও কামরুজ্জামান সাগর এবং প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশনের সৈয়দ ইরফান উল্লাহ।

collected post..