চিএনায়ক সালমান শাহ’র মৃত্যুর কারন ফাঁস। ময়নাতদন্তকারী ও ডোমকে জিঙ্গাসাবাদ, Khulna Bd

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে নব্বইয়ের দশকের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ও সুদর্শন নায়কের নাম চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার ইমন ওরফে সালমান শাহ। চার বছরের চলচ্চিত্র কেরিয়ারের দুরন্ত গতিপথে হঠাৎ করেই ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর অগণিত ভক্তদের শোকের সাগরে ভাসিয়ে মৃত্যুবরণ করেন সালমান।

কি কারণে তার মৃত্যু, তা নিয়ে দীর্ঘদিনের তদন্ত ফেরিয়েও সে রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হয়নি আজও। এবার চিত্রনায়ক সালমান শাহর মরদেহের ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক ও ডোমকে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন আদালত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ ২৬ এপ্রিল বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২০ আগস্ট নতুন করে দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আদালতের এ অনুমতির ফলে হায়দার আলী মেডিকেলের তৎকালীন চিকিৎসক (সালমানের ময়নাতদন্তকারী) ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডোম রমেশ চন্দ্রকে এখন এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তদন্ত সংস্থা পিবিআই (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত সিকদার প্রতিবেদন দাখিলেরে জন্য এ দিন ধার্য করেন। এর আগে ২০১৬ সালের ৭ ডিসেম্বর পিবিআইকে পুনঃতদন্তের জন্য নির্দেশ দেন আদালত।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান চিত্রনায়ক চৌধুরী মোহাম্মদ শাহরিয়ার ইমন ওরফে সালমান শাহ। ওই সময় এ বিষয়ে অপমৃত্যুর মামলা করেন তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী। ১৯৯৭ সালের ২৪ জুলাই ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে- অভিযোগ করে মামলাটি হত্যা মামলায় রূপান্তরের আবেদন জানান তিনি।

অপমৃত্যুর মামলার সঙ্গে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগের বিষয়টি একসঙ্গে তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেন আদালত। সালমান শাহের মৃত্যুর ঘটনাটি তদন্ত করে ১৯৯৭ সালের ৩ নভেম্বর আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় সিআইডি।

চূড়ান্ত প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে ‘আত্মহত্যা’ বলে উল্লেখ করা হয়। ২৫ নভেম্বর ঢাকার সিএমএম আদালতে ওই চূড়ান্ত প্রতিবেদন গৃহীত হয়। সিআইডির প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে তার বাবা কমরউদ্দিন আহমদ চৌধুরী রিভিশন মামলা করেন। ২০০৩ সালের ১৯ মে মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে পাঠান আদালত।

এরপর প্রায় ১২ বছর মামলাটি বিচার বিভাগীয় তদন্তে ছিল। ২০১৪ সালের ৩ আগস্ট ঢাকার সিএমএম আদালতের বিচারক বিকাশ কুমার সাহার কাছে বিচার বিভাগীয় তদন্তের প্রতিবেদন দাখিল করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ইমদাদুল হক। ওই প্রতিবেদনে সালমান শাহর মৃত্যুকে ‘অপমৃত্যু’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর সালমান শাহের মা নীলা চৌধুরীর ছেলের মৃত্যুতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেন এবং ওই তদন্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দেবেন বলে আবেদন করেন। ২০১৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি নীলা চৌধুরী ঢাকা মহানগর হাকিম জাহাঙ্গীর হোসেনের আদালতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রতিবেদনের নারাজির আবেদন দাখিল করেন।

নারাজি আবেদনে উল্লেখ করা হয়, আজিজ মোহাম্মদ ভাইসহ ১১ জন তার ছেলে সালমান শাহের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন। আদালত নারাজি আবেদনটি মঞ্জুর করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে তদন্তভার প্রদান করেন। মামলাটিতে র‌্যাবকে তদন্ত দেয়ার আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ২০১৫ সালের ১৯ এপ্রিল মহানগর দায়রা জজ আদালতে একটি রিভিশন মামলা করেন।

সর্বশেষ ২০১৬ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বিশেষ জজ-৬ এর বিচারক ইমরুল কায়েস রাষ্ট্রপক্ষের রিভিশনটি মঞ্জুর করেন এবং র‌্যাব মামলাটি আর তদন্ত করতে পারবে না বলে আদেশ দেন।

  • খুলনা সিটি নির্বাচন সর্বশেষ ফলাফল জেনে নিন ? KHULNA BD-খুলনা বিডি

    খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৬৫টি কেন্দ্র থেকে পাওয়া ফলাফলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক এগিয়ে রয়েছেন। খুলনা সিটি করপোরেশন …read more →

  • শাহাদাত হোসেন শুরু করলেন অনলাইন নিউজ সাইট /khulnabd.com

    নতুন ভাবে অনলাইন নিউজ সাইট শুরু করলেন শাহাদাত হোসেন। শুরুটা অল্প সল্প দিয়ে। আপনাদের দোয়াই শুরু হলো খুলনা বিডি.কম। এখানে …read more →

  • যে কারণে নিষিদ্ধ হলেন জনপ্রিয় নাটক অভিনেতা অ্যালেন শুভ্র..

    এ প্রজন্মের অভিনেতা অ্যালেন শুভ্র। তার বিরুদ্ধে নাট্যপরিচালক নিয়াজ মাহবুবকে প্রহার করার অভিযোগ উঠেছে। সে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তিন মাসের …read more →

  • মাছের চোয়ালে মানুষের দাঁত- বিস্তারিত পড়ুন/KHULNA BD-খুলনা বিডি

    চাড হোলব্রুক। পামেলা পেশায় একজন মেরিন বায়োলজিস্ট। তিনি জানান, মানুষের দাঁত একটি মাত্র সারিতে থাকে। কিন্তু শিপহেড মাছের দাঁত বেশ …read more →